শিক্ষা

চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র

চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র: আজকের এই পোস্টটির মাধ্যমে চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র?অনিয়মিত চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র?চতুর্ভুজের কর্ণ নির্ণয়ের সূত্র?

ত্রিভুজ ও চতুর্ভুজের পরিসীমা ও ক্ষেত্রফল সূত্র?বিভিন্ন ক্ষেত্রফলের সূত্র?বিষমবাহু চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র? সামান্তরিকের ক্ষেত্রফল নির্ণয়ের সূত্র? তা সম্পর্কে বিস্তরিত জানতে চাইলে পোষ্টটি স্কিপ না করে শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

কিভাবে চতুর্ভুজের এই ক্ষেত্রফল নির্ণয়ের এসব সূত্র গুলো প্রয়োগ করা যায়, তার একটি এমন উদাহরণ দেখা যাক।40 মিটার দৈর্ঘ্য এবং প্রায় 30 মিটার প্রস্থবিশিষ্ট এমণ একটি আয়তাকার বাগানের ভেতরের দিকে চারদিকে সমান চওড়া একটি এই রাস্তা আছে।

আরো পড়ুন: প্রাথমিক শিক্ষা কি | প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা কি

চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র

চতুর্ভুজটি যদি বর্গ, আবার আয়তক্ষেত্র, রম্বস, সামান্তরিক অথবা ট্রাপিজিয়াম গুলো হয় তাহলে তার ক্ষেত্রফল সূত্রের তৈরির মাধ্যমে নির্ণয় করা যায়। কিন্তু একেবারেই সেটা অনিয়মিত হলে তার ক্ষেত্রফল গুলো নির্ণয়ের জন্য সমাকলন কিছু পদ্ধতি প্রয়োগ করতে হয়।

নিয়মিত চতুর্ভুজগুলোর ক্ষেত্রফল গুলো নির্ণয়ের সূত্রগুলো ও নিম্নরূপ :

  • বর্গের ক্ষেত্রফল হলো = বাহুর দৈর্ঘ্য × বাহুর দৈর্ঘ্য
  • আয়তক্ষেত্রের ক্ষেত্রফল হলো = দৈর্ঘ্য × প্রস্থ
  • রম্বসের ক্ষেত্রফল হলো = একটি কর্ণের দৈর্ঘ্য × অপর কর্ণের দৈর্ঘ্য

অনিয়মিত চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র

একটি চিত্রের মত ক্ষেত্রফল গণনা করুন জ্যামিতিক হারে জটিল আমাদের অবশ্যই: আবার 1 / এটি ভেঙে ফেলতে হবে আবার ব্যক্তিত্ব বর্গক্ষেত্র গুলো আয়তক্ষেত্রে 2 / গণনা les আইরেস এই বর্গক্ষেত্র এবং আয়তক্ষেত্র যা হলো এটি রচনা করে। 3 / এই ভাবে সব যোগ করুন আইরেস খুঁজে বের করা হয়েছে এমন পেতেবায়ু মোট ব্যক্তিত্ব.

উদাহরণ হলো:প্রায় 5 সেমি পাশের একটি বর্গক্ষেত্রের করে এর জন্য বায়ু 5 × 5 = 25 সেমি2.আবার এলাকা গণনা করার সূত্র ঘ এই একটি আয়তক্ষেত্র হল L × W, “দৈর্ঘ্য এর প্রায় গুণ এর প্রস্থ”।

চতুর্ভুজের কর্ণ নির্ণয়ের সূত্র

চতুর্ভুজ দুইটির একটি বাহু গুলো অন্য বাহুর ছেদক নয় অর্থাৎ, আবার একটি বাহু অন্য বাহুকে নানা ভাবে শীর্ষবিন্দু ব্যতীত অন্য যেকোন বিন্দুতে ছেদ করে ও না করেনা।

তাই এরা উভয়েই সরল এই চতুর্ভুজ। লক্ষণীয়, একটি চতুর্ভুজের প্রায় প্রত্যেকটি অন্তঃস্থ কোণের সমষ্টি পরিমাপ প্রায় ১৮০° অপেক্ষা কম। তাই এটি সরল এই চতুর্ভুজের অন্তর্গত একটি উত্তল হলো চতুর্ভুজ ।

ত্রিভুজ ও চতুর্ভুজের পরিসীমা ও ক্ষেত্রফল সূত্র

সীমা নির্ধারক রেখাংশ অথবা রেখাংশসমূহের দৈর্ঘ্যের সমষ্টিকে এমন ভাবে পরিসীমা বলে। যেমন হলো (১) আয়তক্ষেত্রের পরিসীমা হলো = ২(দৈর্ঘ্য × প্ৰস্থ) (২) বর্গক্ষেত্রের পরিসীমা হলো= এক বাহুর দৈর্ঘ্য x ৪ (৩) ত্রিভুজের এই পরিসীমা ।

ত্রিভুজের একটি বাহুর দৈর্ঘ্য প্রায় ১৫ সেমি. অপর বাহুর

দৈর্ঘ্য ২০ এবং সর্বশেষ এমন বাহুর দৈর্ঘ্য ২৫ সেমি, তাহলে এর মধ্যে পরিসীমা হবে।

বিভিন্ন ক্ষেত্রফলের সূত্র

১. আয়ত ক্ষেত্রের ক্ষেত্রফল হলো = (দৈর্ঘ্য × প্রস্থ) বর্গ একক প্রায়

২. আয়ত ক্ষেত্রের পরিসীমা, s হলো = ২(দৈর্ঘ্য + প্রস্থ) একক প্রায়

৩. আয়ত ক্ষেত্রের কর্ণের দৈর্ঘ্য, d হলো= √a²+b² বর্গ একক প্রায়

৪. আয়ত ঘনবস্তুর আয়তন হলো= (দৈর্ঘ্য × প্রস্থ × উচ্চতা) ঘন একক প্রায়

৫. বর্গ ক্ষেত্রের ক্ষেত্রফল, a হলো = বাহু² বা a² বর্গ একক প্রায়

৬. বর্গ ক্ষেত্রের পরিসীমা, s হলো= 4a একক প্রায়

৭. বর্গ ক্ষেত্রের কর্ণ, d হলো= √2a একক প্রায়

আরো পড়ুন: শীর্ষ বিন্দু কাকে বলে? আয়তের শীর্ষ বিন্দু কয়টি

চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র (2)
চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র (2)

বিষমবাহু চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র

এখানে দৈর্ঘ্য πr আর প্রস্থ r, আবার তাই ক্ষেত্রফল হলো π(r^2) ।

সূত্রঃ- কোনো বিষম বাহু এই ত্রিভুজের ক্ষেত্রফল হলো=√{S(S-a)(S-b)(S-c)} বর্গ একক। যেখানে S হলো=(a+b+c)/2.

যে ত্রিভুজের বাহুগুলো নানা ভাবে পরস্পর অসমান তাকে এই বিষমবাহু ত্রিভুজ বলে।

ত্রিভুজের কোণগুলো পরস্পরের অসমান হলে তাই তাকে বিষমবাহু ত্রিভুজ বলে।

সামান্তরিকের ক্ষেত্রফল নির্ণয়ের সূত্র

যে চতুর্ভূজের এমন ভাবে বিপরীত বাহুগুলো পরস্পর সমান্তরাল তাই তাকে সামান্তরিক বলে।

  • সামান্তরিক হলো সাধারণ এই চতুর্ভূজের একটি এমন বিশেষ রূপ।
  • একটি সামান্তরিক এবং তার কর্ণ চিত্র
  • একটি সামান্তরিক এবং তার কর্ণ
  • সামান্তরিকের বিপরীত বাহুগুলো নানা ভাবে পরস্পর সমান।

সামান্তরিকের কর্ণদ্বয় পরস্পরকে নানা ভাবে সমদ্বিখণ্ডিত করে।

একটি আয়তক্ষেত্র প্রায় 5 মিটার লম্বা এবং 3 মিটার চওড়া ঘের আবার (5 + 3) × 2 = 16 sts. দ্য এলাকা গণনা শুরু করার সূত্র একটি বর্গক্ষেত্রের হল এই c × c, “পার্শ্ব এমন কিছু গুণাবলী”।

চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফলের সূত্র কি

ক্ষেত্রফল হলো =দৈর্ঘ্য x প্রস্থ।

চারটি বাহু বিশিষ্ট চতুর্ভুজের ক্ষেত্রফল নির্ণয়

এখানে চতুর্থভূজের চারটি বাহু গুলো অসমান। অর্থাৎ এটা হলো ট্রাপিজিয়াম।

অনলাইনে চতুর্ভুজ অনিয়মিত আকৃতির ক্ষেত্রফল নির্ণয়

পরিমিতি সহ এমন কিছু চতুর্ভুজাকৃতিক ক্ষেত্র সমূহে ক্ষেত্রফল,এবং দৈর্ঘ্য, প্রস্থ অথবা পরিসীমা নির্ণয়ের গুরুত্ব এবং অনেক ভূমিকা অপরিসীম।

আরো পড়ুন: কর্ন কাকে বলে? চতুর্ভুজের কর্ণ কয়টি

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button