শিক্ষা

কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে

কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে:পৃথিবী গোলাকার এবং সূর্যকে কেন্দ্র করে তা অনবরত ঘূর্নায়মান। তবে ঘুরতে ঘুরতে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রেখা তৈরি করে সূর্যকে কেন্দ্র  করে অথবা সূর্য কর্তৃক।

সূর্যকে কেন্দ্র করে অথবা সূর্যকে কেন্দ্র করে পৃথিবী যখন ঘুরতে থাকে তখন যে সমস্ত রেখা তৈরি হয় সে ক্ষেত্রে কখনো সূর্য কর্তৃক লেখা তৈরি হয়ে থাকে। 

সেভাবে কর্কটক্রান্তি রেখা নামক একটি আংশিক লেখা যা প্রতিবছর একবার একটি নির্দিষ্ট দিনে দেখা যায়। সেজন্য কর্কটক্রান্তির রেখা  সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য আলোচনা বা মতামত করা হয়ে থাকে। 

তাই কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে কর্কটক্রান্তি রেখা সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য উক্ত পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে জানাচ্ছি। 

প্রতিবছর একই নির্দিষ্ট দিনে দিনের অধিকাংশ সময় বা রাতের অধিকাংশ সময় নয় বরং দিনের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি থাকে এবং রাতের সময়ের পরিমাণ কম থাকে। 

দিনটিকে বড়দিন বলা হয়, কারণ ওই দিনের রাত ছোট হয় এবং দিন বড় হয়ে থাকে। এ ঘটনা ঘটার জন্য মূল কেন্দ্র বা দায়ী বাঁধে ঘটনার পিছনে মোট মূল কারণ রয়েছে কর্কটক্রান্তি  রেখা।

কর্কটক্রান্তির রেখার জন্য বছরের একটি নির্দিষ্ট দিনে দিনের পরিমাণ বেশি হয় এবং রাতের সময়ের পরিমাণ তুলনামূলকভাবে কম হয়ে থাকে। 

এজন্য কর্কটক্রান্তির রেখা সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য যেমন কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে এবং কোন দিন বা কত ডিগ্রী অক্ষাংশে তা ঘটে থাকে এ সম্পর্কে তথ্য জানা খুবই প্রয়োজন। 

কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে

প্রতি বছরে,একবার সূর্য বৃহ রেখা অতিক্রম করে এবং উত্তর গোলার্ধের সর্বশেষ যে স্থান রয়েছে সে স্থান পর্যন্ত ঘুরে আগমন করে বা পরিক্রমা করে। পরিক্রমা করার ক্ষেত্রে উত্তর অক্ষাংশে 23.5 ডিগ্রিতে পরিক্রমণ করে। 

এবং রেখাটি পুনরায় বেশি করে দিকে ফিরে আছি এবং এই যে কাল্পনিক লেখাটি দেখা যায় এ কাল্পনিক রেখা থেকে কর্কটক্রান্তি রেখা বলে। 

মূলত কর্কটক্রান্তি রেখার কারণে বছরের একুশে জুন এই দিনটি সবচেয়ে বড় দিন হয় এবং ছোট রাত হয়। 

তবে আবার বিসুর একাই এলে তা শূন্য ডিগ্রিতে পরিণত হয় এবং দিনরাত্রি সমান হয়ে যায়। এজন্য একুশে মার্চ এবং বাইশে সেপ্টেম্বর এই ২ দিন ও রাজ = হয়ে থাকে। 

কর্কটক্রান্তি ও মকরক্রান্তি রেখা কাকে বলে

কর্কটক্রান্তি  রেখা :

★প্রতি বছরে,একবার সূর্য বৃহ রেখা অতিক্রম করে এবং উত্তর গোলার্ধের সর্বশেষ যে স্থান রয়েছে সে স্থান পর্যন্ত ঘুরে আগমন করে বা পরিক্রমা করে। 

পরিক্রমন করার ক্ষেত্রে উত্তর অক্ষাংশে 23.5 ডিগ্রিতে পরিক্রমণ করে। এবং রেখাটি পুনরায় বেশি করে দিকে ফিরে আছি এবং এই যে কাল্পনিক লেখাটি দেখা যায় এ কাল্পনিক রেখা থেকে কর্কটক্রান্তি রেখা বলে। 

মকরক্রান্তি রেখা : 

যখন, প্রতিবছর একবার কল কর ক্লান্তি ঘটে অর্থাৎ সূর্য উত্তর গোলার্ধে চলে আসে এবং সে ক্ষেত্রে দ্বীনের সময় বেশি হয় এবং রাত ছোট হয়।

তবে বিষুব রেখা অতিক্রম করার পরে কাল্পনিক লেখাটি যখন দক্ষিণ দিকের সাথে ২৩.৫° পর্যন্ত একটি রেখা তৈরি করে তখন সে কাল্পনিক লেখা থেকে মকর ক্রান্তি রেখা বলা হয়। 

কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে
কর্কটক্রান্তি রেখা কাকে বলে

মকরক্রান্তি রেখা কাকে বলে

প্রতিবছর একবার কল কর ক্লান্তি ঘটে অর্থাৎ সূর্য উত্তর গোলার্ধে চলে আসে এবং সে ক্ষেত্রে দ্বীনের সময় বেশি হয় এবং রাত ছোট হয়।

তবে বিষুব রেখা অতিক্রম করার পরে কাল্পনিক লেখাটি যখন দক্ষিণ দিকের সাথে ২৩.৫° পর্যন্ত একটি রেখা তৈরি করে তখন সে কাল্পনিক লেখা থেকে মকর ক্রান্তি রেখা বলা হয়। 

ফলশ্রুতিতে দেখা যায় যে বাইশে ডিসেম্বর এই ক্ষেত্রে এই দিনটিতে দিনের পরিমাণ অর্থাৎ দিনের সময় কাল ছোট হয় এবং রাত্রে বড় হয়। 

কর্কটক্রান্তি রেখার মান কত

যখন সূর্য উত্তর গোলার্ধে চলে আসে এবং তখন যে কাল্পনিক রেখা তৈরি হয় সেই রেখাটি হল কর্কটক্রান্তি রেখা। 

কর্কটক্রান্তি রেখার মান হলো :

√২৩ ডিগ্রী ২৬ মিনিট ২২ সেকেন্ড,,,

উত্তর  অক্ষাংশ বরাবর একটি কল্পিত রেখাচিত্র। 

উক্ত পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে কর্কটক্রান্তি রেখা সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য আলোচনা করার মাধ্যমে জানিয়েছি।

আশা করি কর্কটক্রান্তি রেখা সম্পর্কে আপনার যে সকল তথ্য জানার ছিল অথবা আপনি যে সকল তথ্য জানতে চেয়েছেন তা আমাদের পোস্টের মাধ্যমে যথাযথভাবে জানতে পারবেন, এবং আমাদের পোষ্টের মাধ্যমে কর্কটক্রান্তির রেখা সম্পর্কে জেনে উপকৃত হতে পারবেন। 

আরো পড়ুন: বাজেট রেখা কাকে বলে

আমাদের পোস্টের সঙ্গে রিলেটেড এরকম কয়েকটি প্রশ্ন এবং তার উত্তর নিচে তুলে ধরা হলো :

১. কর্কটক্রান্তি রেখা বাংলাদেশের

= বাংলাদেশের প্রতিবছর ১৩.৫° উত্তর অক্ষাংশের সূর্য পরি ভ্রমণ করতে তাকে এবং পরিভ্রমণ করার ফলে একটি কল্পিত আংশিক রেখাচিত্র দেখা যায় এই কল্পিত রেখা টি হলো  কর্কটক্রান্তি। 

২. কর্কট সংক্রান্তি কাকে বলে

= প্রতিবছরের একটি নির্দিষ্ট দিনে সূর্য ঘুরতে ঘুরতে একটি নির্দিষ্ট রেখা বা আংশিক রেখাচিত্র তৈরি করে তবে তা উত্তর অক্ষাংশের ক্ষেত্রে। তবে সূর্য যখন ঘুরতে ঘুরতে উত্তরায়নের শেষ সীমানায় এসে পৌঁছায় তখন তাকে কর্কট সংক্রান্তি বলা হয়। 

৩. কর্কটক্রান্তি রেখার মান কত?

= √২৩ ডিগ্রী ২৬ মিনিট ২২ সেকেন্ড,,,

উত্তর  অক্ষাংশ বরাবর একটি কল্পিত রেখাচিত্র। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button